ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিজয়ে আনন্দ প্রকাশ করায় মুশফিককে বিসিবি ধমক!

Apr 01, 2016 07:48 am

 


ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিজয়ে আনন্দ প্রকাশ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড মুশফিককে ধমক দিয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় একটি পত্রিকা আর এ কারনে মুশফিক টুইটারে তার আগের মন্তব্য তুলে ফেলে নতুন মন্তব্য করেন। কলকাতার একটি পত্রিকার শিরোনাম ধমক খেয়ে 'অক্রিকেটীয় আচরণের পর ক্ষমা চাইলেন মুশফিকুর'


রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে ৩১ মার্চ রাতে আনন্দে বিহ্বল, আর ১ এপ্রিল দুঃখ প্রকাশ!
এপ্রিলের প্রথম দিন, এটা ভাবার কোনও প্রয়োজন নেই, মুশফিকুর 'এপ্রিল ফুল' ক্রিকেট ফ্যানদের করছেন। বৃহস্পতিবার রাতে, ওয়াংখেড়েতে ভারতের পরাজয়ে আনন্দ বিগলিত হয়ে বাংলাদেশের প্রাক্তন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ট্যুইট করেছিলেন, "এটাই হল আনন্দ...এবার আমি নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারব, উইন্ডি ইউ বিউটি"। তাঁর এই ট্যুইটের পর ওয়েব দুনিয়াতে ছিঃ ছিঃ রব ওঠে। ক্রিকেট প্রেমীদের কাছে মনে হয় মুশফিকুর চুড়ান্ত অপেশাদার একজন ক্রিকেটার। গালমন্দও কম হয়নি। শুধু ভারত নয়, সারা বিশ্বের ফ্যানরা মর্মাহত হন। 'অক্রিকেটীয় আচরণে'র পর নেট দুনিয়ার ঝড় দেখে নিজের ট্যুইট ডিলিটও করে দেন মুশফিকুর।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে মুশফিকুরকে ধমকও দেওয়া হয়। এমনকি তাঁর ক্রিকেট সতীর্থরাও মুশফিকুরের এই আচরণকে একেবারেই মেনে নিতে পারেননি। অবশেষে ক্ষমা চাইলেন মুশফিকুর।


অথচ ভারতীয় ক্রিকেটাররা জঘন্য ভাষায় এর আগে বাংলাদেশ নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছে। ভারত ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা শুধু মন্তব্য করেই ক্ষান্ত দেননি রীতিমতো বাংলাদেশ নিয়ে অপমানজনক কথা বলেছেন। ফাইনালে বাংলাদেশকে ৮ উইকেটে হারানোর পর রবীন্দ্র জাদেজা ম্যাচটি নিয়ে বেশ কয়েকটি টুইট করেন। আর ম্যাচ শেষে জাদেজার টুইট ছিল তাসকিনের হাতে ধোনির কাটা-মু-ু নিয়ে। এক টুইটে তিনি লেখেন, ‘দুধ মাঙ্গোগে, ক্ষীর দেঙ্গে। ফটোশপ মারোগে, চির দেঙ্গে’। তার মানে ‘দুধ চাইলে ক্ষীর দিবো। ফটোশপ দিলে চিরে দিবো’। এখানেই থেমে ছিলেন না জাদেজা। আরও একটি টুইটে বাংলাদেশ নিয়ে অপমানকর কথা লেখেন লেখেন, ‘ধোনি ৬ বলে ২০ রান। তোমাদের বাংলাদেশের মুখে ওই ফটোশপ ছবির যথার্থ জবাব’। এখানে তিনি বাংলাদেশ নিয়ে সীমা ছাড়ানো মন্তব্য করেন। তিনি আর এক টুইটে লেখেন, ‘হা হা হা... ফটোশপের কঠোর জাবাব। ধোনি এলেন, ধোনি মারলেন, ধোনি জিতলেন, ধোনি মাঠ ছাড়লেন’।


এছাড়া ভারতীয় স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন ওমানের বিপক্ষে খেলার সময় টুইট করে জানিয়েছেন, বাংলাদেশ-ওমান ম্যাচ দেখার জন্য আর অপেক্ষা করতে পারছি না। যদি বাংলাদেশ জিতে তাহলে গোটা দেশই খুশি হবে। কিন্তু ওমান জিতলে গোটা ক্রিকেট বিশ্বই খুশি। এভাবে ভারতীয় ক্রিকেটাররা বাংলাদেশ বিরোধী অক্রিকেটীয় আচরণে'র প্রকাশ ঘটিয়েছিলেন।